শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নিকলীতে দুটি ড্রেজারসহ ৫ জন গ্রেফতার। লোহাগড়ায় শ্রী শ্রী জগন্নাথদেবের রথযাত্রা উৎসব অনুষ্ঠিত হাওরে অবৈধ ভাবে বালু উওোলনের মহোৎসব, হুমকিতে তীরবর্তী গ্রাম। খানসামায় বিপদসীমার উপরে আত্রাই নদীর পানি, প্লাবিত মানুষের মাঝে শুকনো খাবার ও নগদ অর্থ বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো:তাজ উদ্দিন বিদ্যুৎ স্পষ্ট হয়ে ৫ জনের মৃত্যু। ভোলা জেলার ১০টি থানার মধ্যে ২টি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদেরকে (ওসি) বদলি করা হয়েছে। বনবিড়াল উদ্ধার স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে যুবলীগ কর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ হতে হবে-হুইপ মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা দিনাজপুরে যাত্রীবাহী বাস ও আমবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত পাঁচজন লোহাগড়ায় সড়কের বিষফোঁড়া ভ্যান ও ইজিবাইক

লোহাগড়ায় দফাই দফায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষ আহত ৩ আটক ২ জন

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৬ মার্চ, ২০২৪
  • ৬০ বার পঠিত

রাশেদ রাসু, জেলা প্রতিনিধ, নড়াইল

নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসহরের সোহাগ পরিবহন কাউন্টারে কর্মরত আব্দুল্লাহ ঠাকুরের সাথে পৌরসহরের রাজুপুর গ্রামের হায়াতুর গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আব্দুল্লাহ ঠাকুর (২০) আব্দুল্লাহর পিতা হুমায় ঠাকুর (৫৫) ও রোমান শেখ আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় হুমায় ঠাকুর কে যশোর ২৫০ সজ্জা হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার রাজুপুর গ্রামের আমিনুর এবং শওকত পরিবহন কাউন্টারের সামনে অজ্ঞাত নামে এক ভ্যান চালকের সাথে উত্তেজিত হয়ে কথা কাটাকাটি করছিল এ সময় কাউন্টারে কর্মরত রোমান শেখ আমিনুর ও শওকতকে ভ্যানচালকের সাথে ঝামেলা করতে নিষেধ করায় তারা দুজনই রোমানের সাথে তর্কে জড়ায় এবং বিষয়টি ওখানেই শেষ হয়। এরপর আমিনুর ও শওকত ফারুক শেখের ছেলে হায়াতুর শেখের নিকট আত্মীয় হওয়ায় ওই ঘটনার জের ধরে ঢাকা কাউন্টারে কর্মরত রোমানের সাথে মঙ্গলবার (৫ মার্চ) বিকাল ৫ টার দিকে রাজাপুর গ্রামের হায়াতুরের নেতৃত্বে ৪০-৫০ জনের একদল দুর্বৃত্ত লক্ষীপাশার ঢাকা সোহাগ কাউন্টারে হামলা চালায়। পরে ঢাকা পরিবহন কাউন্টারের সমস্ত লোকজন আব্দুল্লাহ ও রোমানের নেতৃত্বে লাঠি সোটা নিয়ে সন্ধ্যার পর লক্ষ্মীপাশা মহাজন সড়কে হায়াতুর গ্রুপের লোকজনকে পালটা ধাওয়া করে। এ সময় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে ইট পাটকেল নিক্ষেপ সহ সংঘর্ষ হয়। এতে হায়াতুরের লোকজন আব্দুলার পিতা হুমায় ঠাকুরকে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে এবং আব্দুল্লাহ ও রোমানকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। তাদেরকে লোহাগড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। গুরুতর আহত ঘুমায় ঠাকুর কে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

খবর পেয়ে লোহাগড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে হায়াতুর ও অজ্ঞাত একজনকে আটক করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়।

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাঞ্চন কুমার রায় সংঘর্ষ ও আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর