বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ১২:৪৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে সার পাচারের ঘটনায় ডিলারের নামে মামলা মুমূর্ষুদের বাঁচাতে প্রাণ, আসুন করি রক্তদান” নড়াইলে বাঐসোনা ইউনিয়নে দু গ্রুপের সংঘর্ষ-গুলিবিদ্ধ ২ আহত ৪ জন ৮টি বাড়িঘর ভাংচুর। দেওয়ানগঞ্জে যমুনার পার থেকে ৯০ বোতল ভারতীয় মদ উদ্ধার,গ্রেফতার ১ আশাশুনিতে সমৃদ্ধি ও প্রবীণ কর্মসূচির ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত কলাপাড়ায় ওসির অপসারনের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ কিশোরগঞ্জে জমিসহ ৫০টি ঘর পাচ্ছেন গৃহ ও ভূমিহীনরা। ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঝালকাঠি জেলা কাঠালিয়া উপজেলায় বিজয়ী হলেন যাহারা নড়াইল জেলা পুলিশ লাইনস্ এর নবনির্মিত গান ক্লিয়ারিং পয়েন্টের নামফলক উন্মোচন হাটে নয়,ক্রেতার ভিড় খামারে । *ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা বেশি কাঙ্খিত দামে মিলছে না পশু*

বকশীগঞ্জে দুই মেয়রের সমর্থকদের মধ্যে হামলা আহত-৩

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৩৮ বার পঠিত

সরকার আব্দুর রাজ্জাক জামালপুর প্রতিনিধি।

জামালপুরের বকশীগঞ্জে রাতের আঁধারে বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলায় একই এলাকার তিন জন মারাত্মক আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন-টিকরকান্দী গ্রামের ওয়ারেছ আলী ছেলে শাহীন মিয়া (৩০),জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে সুমন মিয়া (২৬) লাল মিয়ার ছেলে শাওন (২২)। এদের মধ্যে শাহীন মিয়া ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে বলে জানাগেছে।

গত শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) রাতে বিগত পৌর নির্বাচনে বিপক্ষ প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা কে কেন্দ্র করে পূর্ব বিরোধের জের হিসেবে পৌর এলাকার চামড়া গোদাম তাল গাঁছতলা এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত শাহীন মিয়া ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিগত পৌরসভা নির্বাচনে সাবেক মেয়র আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম সওদাগরের পক্ষে নির্বাচন করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমান মেয়র ফখরুজামান মতিনের ছোট ভাই মনিরের সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার টিকরকান্দী এলাকায় একটি মারামারীর ঘটনায় গ্রাম্য শালিসে বসেন মেয়র ফখরুজামান মতিন। শালিসে সাবেক মেয়র নজরুল ইসলাম সওদাগরের পক্ষের লোকজনকে মারধর ও জীবন নাশের হুমকি দেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। শুক্রবার রাত আনুমানিক ৯ টার দিকে শাহীন মিয়া, সুমন মিয়া ও শাওন জীবনের নিরাপত্তার জন্য থানায় জিডি করতে যাওয়ার পথে পৌর এলাকার চামড়া গোদাম তালগাঁছ এলাকায় পৌঁছলে সেখানে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা মেয়রের ভাই মনির,শরাফত,মেয়রের ভাতিজা সুজন,হাকিম, সোলাইমান গং এর নেতৃত্বাধীন ৩০/৪০ জনের একদল লোক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা তিনজনকে এলোপাথাড়ী কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে এলাকাবাসী ও স্বজনরা মুমূর্ষু অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এদের মধ্যে শাহীন মিয়ার অবস্থা আশঙ্কা জনক হওয়ায় তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনা জানতে মেয়র ফখরুজামান মতিনের সাথে ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ খাঁন বলেন, দুই পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত কাজ চলমান রয়েছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর