বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০২:১৮ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কিশোরগঞ্জে সার পাচারের ঘটনায় ডিলারের নামে মামলা মুমূর্ষুদের বাঁচাতে প্রাণ, আসুন করি রক্তদান” নড়াইলে বাঐসোনা ইউনিয়নে দু গ্রুপের সংঘর্ষ-গুলিবিদ্ধ ২ আহত ৪ জন ৮টি বাড়িঘর ভাংচুর। দেওয়ানগঞ্জে যমুনার পার থেকে ৯০ বোতল ভারতীয় মদ উদ্ধার,গ্রেফতার ১ আশাশুনিতে সমৃদ্ধি ও প্রবীণ কর্মসূচির ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত কলাপাড়ায় ওসির অপসারনের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ কিশোরগঞ্জে জমিসহ ৫০টি ঘর পাচ্ছেন গৃহ ও ভূমিহীনরা। ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ঝালকাঠি জেলা কাঠালিয়া উপজেলায় বিজয়ী হলেন যাহারা নড়াইল জেলা পুলিশ লাইনস্ এর নবনির্মিত গান ক্লিয়ারিং পয়েন্টের নামফলক উন্মোচন হাটে নয়,ক্রেতার ভিড় খামারে । *ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা বেশি কাঙ্খিত দামে মিলছে না পশু*

কলাপাড়ায় চাঁদার টাকা না দেওয়ায় রাইচ মিল,তেলের মিল বন্ধ

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৪০ বার পঠিত

মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, কলাপাড়-কুয়াকাটা প্রতিবেদকঃ

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর ইউনিয়নের চাঁদাবাজদের হুমকি ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন মধ্যবাজারের একজন হোটেল ব্যবসায়ী ভ‚ক্তভোগী মো. আবু হানিফ। রবিবার বেলা ১১ টায় কলাপাড়া প্রেসক্লাব’র ইঞ্জিনিয়ার তৌহিদুর রহমান হল রুমে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। মহিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মালেক আকন ও তার লোকজনদের বিরুদ্ধে চাঁদা দাবীর অভিযোগ করেন তিনি। এ বিষয়ে ১২ জনকে আসামী করে কলাপাড়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

লিখিত বক্তব্যে আবু হানিফ বলেন, তিনি মহিপুর মধ্যবাজারের একজন হোটেল ব্যবসায়ী। মহিপুর বাজারে সোহান নামক একটি আবাসিক হোটেল তৈরী করে সুনামের সহিত দীর্ঘ দিন ধরে ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। মহিপুর বন্দরে কারিতাস ভবনের দক্ষিন পাশে হাইওয়ে সংলগ্ন ১৮ শতাংশ জমি ক্রয় করে তিনি ও তার ভাই ইব্রাহীম ভোগদখল করে আসছে। সেখানে ৫ তলা একটি ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করেন। ফলে, চক্ষুশুল হয়ে ওঠে চাঁদাবাজদের। স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মালেক আকন, লাদেন ওরফে সত্তার, রুহুল আমিন ওরফে দুলাল ডাক্তারসহ আরো কয়েকজন একত্রিত হয়ে তার কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের উদ্দেশ্যে তাদের অপর এক সঙ্গী ইউনুস হাওলাদারকে দিয়া তার নামে আদালতে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং সিআর ৮৩০/২০২৩। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে ওই মামলাটিকে মিথ্যা বলিয়া আদালতে রিপোর্ট দাখিল করেন। তবে, ওই রিপোর্ট দাখিলের পরে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। সেই সাথে ভবনের পাশে অবস্থিত তাদের রাইচ মিল ও তেলের মিল বন্ধ করে দিয়ে ১৩ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করেন। টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাকে মারধর করে গুরুত্বর ফুলা ও জখম করে। এসময় লাদেন সত্তার তার পাঞ্জাবির পকেট থেকে নগদ ৫৫ হাজার টাকা নিয়া যায়। ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে আসলে তারা দাবিকৃত চাঁদার টাকা পরিশোধ করার জন্য বিভিন্ন হুমকি দিয়ে চলে যায়। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেছে সাধারন মানুষসহ ব্যবসায়ীরা। চাঁদা না দিয়ে কেহ বিল্ডিং নির্মাণসহ ব্যবসা বাণিজ্য করতে পারছেন না। এ সকল চাঁদাবাজদের হাত থেকে রক্ষা পেতে যথাযথ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন ভ‚ক্তভোগী।

###

কলাপাড়া-পটুয়াখালী।

তারিখ: ৩১.০৩.২০২৪ ইং।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর